জ্বর কমতে শুরু করলে শরীর ঘামে কেন? - ScienceBee প্রশ্নোত্তর

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রশ্নোত্তর দুনিয়ায় আপনাকে স্বাগতম! প্রশ্ন-উত্তর দিয়ে জিতে নিন পুরস্কার, বিস্তারিত এখানে দেখুন।

+7 টি ভোট
2,788 বার দেখা হয়েছে
"স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে করেছেন (123,340 পয়েন্ট)

3 উত্তর

+2 টি ভোট
করেছেন (123,340 পয়েন্ট)
 
সর্বোত্তম উত্তর
Nishat Tasnim-

জ্বর হলে সাধারণত দেহের তাপমাত্রা স্বাভাবিক এর চেয়ে বেশি হয়ে যায়। দেহের তাপমাত্রা 100.4°F (38°C) এর বেশি হলে হলে জ্বর হয়েছে বলে ধরে নেওয়া হয়। আর দেহের তাপমাত্রা 103°F (39°C) মানে হাই ফিভার আছে। জ্বর হওয়ার প্রধাণ কারণ হচ্ছে নানা পাইরোজেন, ব্যাকটেরিয়ার, ভাইরাস, পরজীবীর সংক্রমণে। শরীর ঠান্ডা করার একটি প্রক্রিয়া হলো ঘাম হওয়া। তবে ঘামানো জ্বর এর জন্য উপকারি এমন তথ্য কোথাও পাওয়া যায়নি। জ্বর হলে set point বেড়ে যায় এবং শরীর গরম হয়ে পড়ে। Set point হলো হাইপোথ্যালামাসের একটি নির্দিষ্ট তাপমাত্রা যাকে সে স্বাভাবিক মনে করে এবং সেই অনুযায়ী দেহের তাপমাত্রা কমায় বা বাড়ায়। স্বাভাবিক set point হলো 36°C থেকে 37.5°C। শরীর গরম হওয়ার কারণ হচ্ছে রোগ প্রতিরোধ এর চেষ্টা করা। জ্বর কমে গেলে set point হ্রাস পায়। কিন্তু তখনো দেহের তাপমাত্রা বেশি থাকে, যার জন্য গরম লাগে। তখন আমাদের ঘামগ্রন্থি দেহকে ঠান্ডা করার জন্য ঘাম তৈরি করে। এর মানে জ্বর কমে এসেছে।
0 টি ভোট
করেছেন (140 পয়েন্ট)

মাথাব্যথা, শরীর গরম হয়ে যাওয়া এবং সেই সাথে ক্লান্তি ভাব লাগা এই কয়েকটি বাহ্যিক লক্ষণ দেখেই আমরা জ্বর চিহ্নিত করতে পারি। আশা করি জ্বরে কি এবং জ্বরে কেন হয় আমাদের শরীরে এ বিষয়ে কোনো জ্ঞান আপনাদেরকে প্রদান করতে হবে না। কেননা বর্তমান সমাজে জ্বর এই অসুখটি সম্পর্কে কারো মাথায় সাধারণ জ্ঞান নেই এরকম লোক পাওয়া দুঃসাধ্যের ব্যাপার।

 

আমরা সকলে জানি যে শরীরের উষ্ণতা ১০০.৪ ডিগ্রী এর বেশি হলে তাকে জ্বর বলে এবং জ্বর এর কারণে আমাদের পুরো শরীরের তাপমাত্রায় ১০০.৪ ডিগ্রী এর বেশি হয়ে যায়। এবং যখন আমাদের জ্বর কমে যায় তখন আমাদের শরীরের তাপমাত্রা স্বাভাবিক হতে শুরু করে কিন্তু তাপমাত্রা স্বাভাবিক হতে শুরু করলেও শরীরের অভ্যন্তরীণ এবং বাহ্যিক তাপমাত্রা কিছুক্ষণের জন্য ১০০.৪ ডিগ্রি এর বেশি হয়ে থাকে।

 

এক্ষেত্রে দেখা যায় যে, আমাদের অভ্যন্তরীণ কাঠামে তাপমাত্রা সঠিক অনুপাতে চলে এসেছে কিন্তু পুরো শরীরের তাপমাত্রা ১০০.৪ ডিগ্রী এর বেশি রয়েছে। আর এটাই মূল কারণ কেন জ্বর কমার সাথে সাথে আমাদের শরীরে ঘাম দেখাবে।

 

জ্বর কমার ফলে অভ্যন্তরীণ তাপমাত্রা স্বাভাবিক হয়ে যায় কিন্তু বাহ্যিক তাপমাত্রা বেশি থাকার কারণে আমরা অত্যাধিক গরম অনুভব করি এবং এই গরম অনুভব করার কারণে আমরা ঘেমে যাই।

তথ্যসুত্রঃ সঠিকনিউজ স্বাস্থ্য ও যত্ন বিভাগ

0 টি ভোট
করেছেন (500 পয়েন্ট)

জ্বর কমলে ঘাম হওয়ার কারণ মূলত দুটি হতে পারে - জর্দোষকবিশিষ্ট তাপমাত্রা এবং সাধারণত উচ্চ তাপমাত্রা দ্বারা উত্পন্ন হওয়া জর্দোষ। একটি প্রকাশ্য উদাহরণ দিয়ে এটি বিশ্লেষণ করা যায়:

ঘামের জর্দোষ হলে সাধারণত পানির বাষ্পীভূত রাসায়নিক গঠন ঘটে। জর্দোষের সৃষ্টি বেশি হলে পানি তাপ চালিয়ে বাইরে উঠে এবং ঘামে পরিণত হয়। তাপমাত্রা কমলে, জর্দোষ কম হয় এবং ঘাম কম উত্পন্ন হয়।

যেমন ধরুন, একটি জলপাই পানিতে একটি ব্যক্তি পড়েছে এবং তার শরীরের তাপমাত্রা উচ্চ হয়েছে। তারপরে যখন সে পানি পান করবে, জর্দোষ বেশি হবে এবং ঘাম উত্পন্ন হবে। কিন্তু যখন সে জ্বরের কারণে তাপমাত্রা কমলে, জর্দোষ কম হয় এবং ঘাম উত্পন্ন হবে না বা অতিরিক্ত কম হবে।

তাই, জ্বর কমলে ঘাম হয় কারণ তাপমাত্রা কম থাকার জন্য জর্দোষ ও সংকীর্ণতা কম হয়ে যায়, যা ঘাম উত্পন্ন করার প্রক্রিয়াকে কমিয়ে নেয়।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

+11 টি ভোট
2 টি উত্তর 520 বার দেখা হয়েছে
03 অগাস্ট 2020 "স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন বিজ্ঞানের পোকা ৩ (25,790 পয়েন্ট)
+2 টি ভোট
1 উত্তর 501 বার দেখা হয়েছে
+7 টি ভোট
1 উত্তর 247 বার দেখা হয়েছে
+14 টি ভোট
3 টি উত্তর 935 বার দেখা হয়েছে

10,720 টি প্রশ্ন

18,361 টি উত্তর

4,729 টি মন্তব্য

239,975 জন সদস্য

60 জন অনলাইনে রয়েছে
0 জন সদস্য এবং 60 জন গেস্ট অনলাইনে
  1. Ayon Ratan Agni

    390 পয়েন্ট

  2. Vuter Baccha

    150 পয়েন্ট

  3. almoyaj_k

    130 পয়েন্ট

  4. Mehedi_Bknowledge

    110 পয়েন্ট

  5. Monojit Das

    110 পয়েন্ট

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় উন্মুক্ত বিজ্ঞান প্রশ্নোত্তর সাইট সায়েন্স বী QnA তে আপনাকে স্বাগতম। এখানে যে কেউ প্রশ্ন, উত্তর দিতে পারে। উত্তর গ্রহণের ক্ষেত্রে অবশ্যই একাধিক সোর্স যাচাই করে নিবেন। অনেকগুলো, প্রায় ২০০+ এর উপর অনুত্তরিত প্রশ্ন থাকায় নতুন প্রশ্ন না করার এবং অনুত্তরিত প্রশ্ন গুলোর উত্তর দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। প্রতিটি উত্তরের জন্য ৪০ পয়েন্ট, যে সবচেয়ে বেশি উত্তর দিবে সে ২০০ পয়েন্ট বোনাস পাবে।


Science-bee-qna

সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয় ট্যাগসমূহ

মানুষ পানি ঘুম পদার্থ - জীববিজ্ঞান এইচএসসি-উদ্ভিদবিজ্ঞান এইচএসসি-প্রাণীবিজ্ঞান পৃথিবী চোখ রোগ রাসায়নিক শরীর রক্ত আলো মোবাইল ক্ষতি চুল কী #ask চিকিৎসা পদার্থবিজ্ঞান সূর্য প্রযুক্তি প্রাণী স্বাস্থ্য বৈজ্ঞানিক মাথা গণিত মহাকাশ পার্থক্য এইচএসসি-আইসিটি #science বিজ্ঞান #biology খাওয়া শীতকাল গরম কেন #জানতে ডিম চাঁদ বৃষ্টি কারণ কাজ বিদ্যুৎ রাত রং উপকারিতা শক্তি লাল আগুন সাপ মনোবিজ্ঞান গাছ খাবার সাদা আবিষ্কার দুধ উপায় হাত মশা মাছ মস্তিষ্ক শব্দ ঠাণ্ডা ব্যাথা ভয় বাতাস গ্রহ স্বপ্ন রসায়ন তাপমাত্রা উদ্ভিদ কালো কি বিস্তারিত রঙ পা পাখি গ্যাস মন সমস্যা মেয়ে বৈশিষ্ট্য হলুদ বাচ্চা সময় ব্যথা মৃত্যু চার্জ অক্সিজেন ভাইরাস আকাশ গতি দাঁত আম বিড়াল কান্না নাক
...