কোনো শব্দের উপর (ঁ) দিলে ঐ শব্দের কিরকম পরিবর্তন হয়? আর না দিলে কি সমস্যা হবে? - ScienceBee প্রশ্নোত্তর

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রশ্নোত্তর দুনিয়ায় আপনাকে স্বাগতম! প্রশ্ন-উত্তর দিয়ে জিতে নিন পুরস্কার, বিস্তারিত এখানে দেখুন।

0 টি ভোট
772 বার দেখা হয়েছে
"চিন্তা ও দক্ষতা" বিভাগে করেছেন (250 পয়েন্ট)
কোনো শব্দের উপর (ঁ) দিলে ঐ শব্দের কিরকম পরিবর্তন হয়? আর না দিলে কি সমস্যা হবে?

3 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন (5,110 পয়েন্ট)

কোনো শব্দের উপর (ঁ) দিলে ঐ শব্দের কিরকম পরিবর্তন হয়? আর না দিলে কি সমস্যা হবে?

(ঁ)  -> এইটা দ্বারা কি বুঝিয়েছেন ?

করেছেন (250 পয়েন্ট)
+1
এটা দ্বারা চন্দ্রবিন্দু বোঝানো হয়েছে..
করেছেন (5,110 পয়েন্ট)

credit:Morshedul Haque Jibon

#চন্দ্রবিন্দু ঁ কখন এবং কেন ব্যবহার হয়।

তৎসম শব্দ থেকে যখন অনুনাসিক বা নাসিক্য ধ্বনি উঠে যায় তখন যে স্থান থেকে নাসিক্য বর্ণ উঠে যায় তার পূর্বের বর্ণের উপর চন্দ্রবিন্দু বসে।

যেমন-

পঞ্চ= পাঁচ

এখানে নাসিক্য বর্ণ 'ঞ' চলে যাওয়ায় 'প' এর উপর চন্দ্রবিন্দু যুক্ত হয়ে পাঁচ হয়েছে ।

তেমনি,

কাঞ্চা থেকে কাঁচা,

বঙ্কিম থেকে বাঁকা

ক্রন্দন থেকে কাঁদা

হংস থেকে হাঁস

চন্দ্র থেকে চাঁদ

গ্রাম থেকে গাঁ

দেখা যায় অনেকেই সজ্ঞানে বা অজ্ঞতা বসত চন্দ্রবিন্দু যুক্ত শব্দে চন্দ্রবিন্দু ব্যবহার করেনা। কিন্তু এই চন্দবিন্দুর এতোই শক্তি, এর বিচ্যুতিতে শব্দটির অর্থ পরিবর্তন হয়ে যায়। বাংলা ভাষায় সূক্ষ্মাতিসূক্ষ্ম কিছু বিষয় আছে তারমধ্যে চন্দ্রবিন্দুর ব্যবহার অন্যতম।

যেমনঃ গা - শরীর বা দেহ।

গাঁ - গ্রাম বা গাঁও।

গায়ে - শরীরে।

গাঁয়ে - গ্রামে।

চাদ - একটি দেশের নাম।

চাঁদ - চন্দ্র বা শশী।

তার বা তাহার - বয়োকনিষ্ঠকে বুঝায়।

তাঁর বা তাঁহার - বয়োজ্যেষ্ঠকে বুঝায়।

হাস বা হাসি - আনন্দ প্রকাশের ভঙ্গি।

হাঁস বা হাঁসি - হংস আর হংসী।

হাট - সাপ্তাহিক বাজার বসে যেখানে।

হাঁট - পায়ে হেঁটে চলা।

ধোয়া - পরিস্কার করা।

ধোঁয়া - ধূম্র।

ভাজ - তেলে ভাজতে বলা।

ভাঁজ - গুটিয়ে ফেলা।

কাদি - কলার কাদি, খেজুরের কাদি।

কাঁদি - কান্না করি।

কাদা - কর্দমাক্ত, নরম মাটি।

কাঁদা - ক্রন্দন করা, কান্না করা।

ফোটা - প্রস্ফুটিত হওয়া।

ফোঁটা - জলবিন্দু।

কাচা - ধুয়ে পরিষ্কার করা।

কাঁচা - অপূর্ণ, পাকেনি যাহা।

কাটা - কেটে ফেলা, খন্ড করা।

কাঁটা - কণ্টক, সূচালো বস্তু।

খোঁজা - সন্ধান করা।

খোজা - খাসি করণ।

আঁধার - অন্ধকার।

আধার - পাত্র।

এরকম অনেক শব্দই আছে যেগুলোতে চন্দ্রবিন্দু না দিলে পাঠককে সমস্যায় পড়তে হবে।

নিম্নে কিছু চন্দ্রবিন্দু যুক্ত শব্দ দেয়া হলোঃ

তাঁরা, পৌঁছে, পৌঁছান, ঝাঁপিয়ে, ঝাঁকি , ঝাঁকে, আঁকা, বাঁকা, ঝুঁকি, আঁকাবাঁকা, চিঁড়া, তাঁদের, হ্যাঁ, খুঁজেছি, খুঁজে, খোঁজ, জাঁক, পাঁচটা, হিঁচড়ে, হাঁচি,-কাশি, হাঁটা, হাঁস, সাঁতার, কাঁটা, কাঁধে, কাঁদতে, এঁদের, চাঁদ, মিঁয়া , শাঁসের , শিঁকে, গাঁথা, গাঁয়ের, গাঁজা, রাঁধা, রাঁড়, ফাঁক, ফাঁকা, ফাঁকি, ফিঁচকে , ইঁদুর, উঁকি, উঁচু, ঠাঁসা, ঠাঁই, ধাঁধা, অঁরি, ষাঁড়, বাঁচতে, বাঁক ,বাঁধন, ঘাঁটাঘাঁটি, ঘাঁটতে, যাঁরা, ছাঁদ, ছাঁকে, ভাঁজ, ভেঁজা, থেঁতলে, ফেঁপে, ফেঁসে, ফেঁদে, তেঁতুল, সেঁকা, বেঁধে, পেঁচিয়ে, পেঁয়াজ, পেঁচা ,পঁচা, রেস্তোরাঁ,বাঁশ, রেস্তোরাঁয়, চেঁচামেচি, চেঁচাচ্ছে, ছেঁড়া, ছুঁয়ে, ছুঁড়ে, ফোঁটা, দাঁড়িয়ে, জোঁক, বোঁচকা, ছোঁয়া, ভোঁতা, গোঁফ, গোঁড়ামি, হোঁচট, কাঁকড়া, কেঁচো, ধোঁয়া, ঊঁকি, খাঁটি, খাঁচা, আঁশযুক্ত, আঁচল, আঁকড়ে!!

আশাকরি বিষয়টি সবার মোটামুটি পরিষ্কার হয়েছে।

#coppy

করেছেন (250 পয়েন্ট)
ধন্যবাদ আপনাকে,  সুন্দর করে বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য।
0 টি ভোট
করেছেন (4,570 পয়েন্ট)
কোনো শব্দের উপর (ঁ) চিহ্নটি যুক্ত করা হয় উচ্চারণ দর্শাতে। এই চিহ্নটি বাংলা ভাষাতে "চন্দ্রবিন্দু" নামে পরিচিত। এই চিহ্নের মাধ্যমে কোনো শব্দের উচ্চারণের অন্তত একটি স্বরবর্ণ উচ্চারিত হয়।

যেমন, বাংলা ভাষাতে "সংস্কৃতি" শব্দের উচ্চারণে চন্দ্রবিন্দু যুক্ত করা হয় এবং এর স্বরবর্ণ "ই" উচ্চারিত হয়। আবার, "সংস্কার" শব্দে চন্দ্রবিন্দু নেই এবং এর স্বরবর্ণ "আ" উচ্চারিত হয়।

চন্দ্রবিন্দু না থাকলে কোনো শব্দে উচ্চারণের ভুল হতে পারে এবং সেটির অর্থ পরিবর্তিত হতে পারে। তাই সঠিক উচ্চারণ জানা থাকা উচিত।
0 টি ভোট
করেছেন (5,380 পয়েন্ট)
কোনো কোনো শব্দের উপর ঁঁ না থাকলে অর্থের বিকৃত হতে পারে।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

+3 টি ভোট
1 উত্তর 218 বার দেখা হয়েছে
14 অক্টোবর 2021 "চিন্তা ও দক্ষতা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Abid Hassan Sifat (230 পয়েন্ট)
+12 টি ভোট
1 উত্তর 969 বার দেখা হয়েছে

10,758 টি প্রশ্ন

18,423 টি উত্তর

4,737 টি মন্তব্য

248,991 জন সদস্য

24 জন অনলাইনে রয়েছে
0 জন সদস্য এবং 24 জন গেস্ট অনলাইনে
  1. Sheikh Sakib

    110 পয়েন্ট

  2. Shubrnatalukdar

    110 পয়েন্ট

  3. Elma Hasan Jahnbee

    110 পয়েন্ট

  4. Taspia Tahsin

    110 পয়েন্ট

  5. Junayed Hasan Mridul

    110 পয়েন্ট

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় উন্মুক্ত বিজ্ঞান প্রশ্নোত্তর সাইট সায়েন্স বী QnA তে আপনাকে স্বাগতম। এখানে যে কেউ প্রশ্ন, উত্তর দিতে পারে। উত্তর গ্রহণের ক্ষেত্রে অবশ্যই একাধিক সোর্স যাচাই করে নিবেন। অনেকগুলো, প্রায় ২০০+ এর উপর অনুত্তরিত প্রশ্ন থাকায় নতুন প্রশ্ন না করার এবং অনুত্তরিত প্রশ্ন গুলোর উত্তর দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। প্রতিটি উত্তরের জন্য ৪০ পয়েন্ট, যে সবচেয়ে বেশি উত্তর দিবে সে ২০০ পয়েন্ট বোনাস পাবে।


Science-bee-qna

সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয় ট্যাগসমূহ

মানুষ পানি ঘুম পদার্থ - জীববিজ্ঞান এইচএসসি-উদ্ভিদবিজ্ঞান এইচএসসি-প্রাণীবিজ্ঞান পৃথিবী চোখ রোগ রাসায়নিক শরীর রক্ত আলো #ask মোবাইল ক্ষতি চুল কী চিকিৎসা পদার্থবিজ্ঞান সূর্য #science প্রযুক্তি স্বাস্থ্য মাথা প্রাণী গণিত বৈজ্ঞানিক মহাকাশ পার্থক্য এইচএসসি-আইসিটি #biology বিজ্ঞান খাওয়া গরম শীতকাল #জানতে কেন ডিম চাঁদ বৃষ্টি কারণ কাজ বিদ্যুৎ রাত রং উপকারিতা শক্তি লাল আগুন সাপ মনোবিজ্ঞান গাছ খাবার সাদা আবিষ্কার দুধ উপায় হাত মশা মাছ ঠাণ্ডা মস্তিষ্ক শব্দ ব্যাথা ভয় বাতাস স্বপ্ন তাপমাত্রা গ্রহ রসায়ন উদ্ভিদ কালো পা কি বিস্তারিত রঙ মন পাখি গ্যাস সমস্যা মেয়ে বৈশিষ্ট্য হলুদ বাচ্চা সময় ব্যথা মৃত্যু চার্জ অক্সিজেন ভাইরাস আকাশ গতি দাঁত আম হরমোন বাংলাদেশ বিড়াল
...