বিজ্ঞান কাকে বলে? - ScienceBee প্রশ্নোত্তর

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রশ্নোত্তর দুনিয়ায় আপনাকে স্বাগতম! প্রশ্ন-উত্তর দিয়ে জিতে নিন পুরস্কার, বিস্তারিত এখানে দেখুন।

+26 টি ভোট
11,220 বার দেখা হয়েছে
"বিবিধ" বিভাগে করেছেন (32,140 পয়েন্ট)
বিভাগ পূনঃনির্ধারিত করেছেন

7 উত্তর

+4 টি ভোট
করেছেন (32,140 পয়েন্ট)
 
সর্বোত্তম উত্তর

ভৌত বিশ্বের যা কিছু পর্যবেক্ষণযোগ্য, পরীক্ষণযোগ্য ও যাচাইযোগ্য, তার সুশৃঙ্খল, নিয়মতান্ত্রিক গবেষণা ও সেই গবেষণালব্ধ জ্ঞানভাণ্ডারের নাম বিজ্ঞান।বিজ্ঞান শব্দের বিশ্লেষিত রূপ বি+জ্ঞান। ‘বি’ অর্থ বিশেষ আর ‘জ্ঞান’ অর্থ সম্যক ধারণা। সুতরাং বিজ্ঞান শব্দের অর্থ বিশেষ সম্যক ধারণা।এককথায় বিশেষ জ্ঞানই হলো বিজ্ঞান।

করেছেন
+1
right
+3 টি ভোট
করেছেন (230 পয়েন্ট)
কোনো ঘটনা,তথ্য কিংবা উপাত্ত বসবর্তী হয়ে তা জানার জন্য পর্যবেক্ষন, তথ্য বিশ্লেষন, পরীক্ষন, তথ্য গ্রহন, সির্ধান্ত, ঐ তথ্যের ভিক্তিতে নতুন কল্পিত কোন ধারনার সম্ভাব্যতা ঘটানোর প্রচেষ্টায় ঘটিত ঘটনাগুলোর একত্রে নাম বিজ্ঞান।

বিজ্ঞান অর্থ বিশেষ জ্ঞান।

কাজেই এক কথায় বলা যায় যে, প্রকৃতির কোন ঘটনাকে উদঘাটন করে, নিজেদের পরিকল্পনার মডেলকে বাস্তবে রুপদান করা বিষয়ক জ্ঞানকে বিজ্ঞান বলে।
বিজ্ঞানের প্রথম কাজ পর্যবেক্ষণ করা,দ্বিতীয় কাজ তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করা এবং তৃতীয় কাজ হলো সেই তথ্য উপাত্তের উপর ভিত্তি করে সমস্যার
ব্যাখ্যা এবং সমাধান খোজাঁ।সমস্যা বলতে এখানে অমীমাংসিত প্রশ্নকে বোঝানো হয়।
আর বিজ্ঞানী তিনি যিনি, এইসকল বিষয়ে কর্মকান্ড করে থাকেন। সফল বা বিফল না ভেবে এগিয়ে যান।

সেই বিজ্ঞানী প্রকৃত বিজ্ঞানী নন যিনি অসফলের পর সম্ভাব না বা প্রয়োজন নাই ভেবে সমাপ্তি টানেন।
+2 টি ভোট
করেছেন (230 পয়েন্ট)
সাধারণত কোনো ঘটনা,তথ্য কিংবা উপাত্ত বসবর্তী হয়ে তা জানার জন্য পর্যবেক্ষন, তথ্য বিশ্লেষন, পরীক্ষন, তথ্য গ্রহন, সির্ধান্ত, ঐ তথ্যের ভিক্তিতে নতুন কল্পিত কোন ধারনার সম্ভাব্যতা ঘটানোর প্রচেষ্টায় ঘটিত ঘটনাগুলোর একত্রে নাম বিজ্ঞান।

বিজ্ঞান অর্থ বিশেষ জ্ঞান।

কাজেই এক কথায় বলা যায় যে, প্রকৃতির কোন ঘটনাকে উদঘাটন করে, নিজেদের পরিকল্পনার মডেলকে বাস্তবে রুপদান করা বিষয়ক জ্ঞানকে বিজ্ঞান বলে।
বিজ্ঞানের প্রথম কাজ পর্যবেক্ষণ করা,দ্বিতীয় কাজ তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করা এবং তৃতীয় কাজ হলো সেই তথ্য উপাত্তের উপর ভিত্তি করে সমস্যার
ব্যাখ্যা এবং সমাধান খোজাঁ।সমস্যা বলতে এখানে অমীমাংসিত প্রশ্নকে বোঝানো হয়।
আর বিজ্ঞানী তিনি যিনি, এইসকল বিষয়ে কর্মকান্ড করে থাকেন। সফল বা বিফল না ভেবে এগিয়ে যান।

সেই বিজ্ঞানী প্রকৃত বিজ্ঞানী নন যিনি অসফলের পর সম্ভাব না বা প্রয়োজন নাই ভেবে সমাপ্তি টানেন।
+2 টি ভোট
করেছেন (160 পয়েন্ট)
বিজ্ঞান হলো এক ধরণের জ্ঞান। এখন আবার প্রশ্ন আসে এই জ্ঞান আবার কি? জ্ঞান হলো কোনো কিছু সম্পর্কে তথ্য। তাহলে এই বিজ্ঞান আবার কি সম্পর্কে তথ্য? আমরা সবাই প্রাথমিক বিজ্ঞানে পড়েছি সৃষ্টির পঞ্চনামা সম্পর্কে, পড়েছি জীব, জড় সম্পর্কে সব মিলিয়ে জেনেছি আমাদের অন্তরঙ্গ বন্ধু পরিবেশ নিয়ে। বেশিরভাগই জেনেছি প্রাকৃতিক পরিবেশ সম্পর্কে।  আবার জেনেছি কিছু প্রাকৃতিক বিভিন্ন ঘটনা সম্পর্কে। যেমনঃ কীভাবে বৃষ্টি হয়? কীভাবে একটি উদ্ভিদ খাদ্য উৎপাদন করে ইত্যাদি। সুতরাং বিজ্ঞান হলো প্রকৃতি ও প্রাকৃতিক ঘটনা সম্পর্কে জ্ঞান।
আবার প্রকৃতি সম্পর্কে যেকোনো তথ্যই যে বিজ্ঞান তা কিন্তু নয়। কেউ যদি কোনো প্রাকৃতিক ঘটনার মনগড়া ব্যাখ্যা দেয়, তা কিন্তু  আর বিজ্ঞান হবে না। বিজ্ঞানের জ্ঞান হতে হলে তাকে হয় পরীক্ষা বা পর্যবেক্ষণ করে পেতে হবে অথবা পরীক্ষা বা পর্যবেক্ষণ  থেকে পাওয়া তথ্য দ্বারা সমর্থিত হতে হবে। বৃষ্টি কেমনে হয় তা কিন্তু আমরা অনেক জায়গায় গল্পাকারে ব্যাখ্যা শুনেছি। কিন্তু এ ধরণের ব্যাখ্যা কি বিজ্ঞান?  ১০০% না, এধরনের ব্যাখ্যা বিজ্ঞান নয়। কারণ এসব ব্যাখ্যা পরীক্ষা থেকে পাওয়া নয় বা কোনো পরীক্ষা এদেরকে সমর্থন করে না। তাহলে এখন যদি বলি বিজ্ঞান কি? তাহলে আমরা বলবো,

পরীক্ষা, নিরীক্ষা, পর্যবেক্ষণ  পদ্ধতিগতভাবে লব্ধ সুসংবদ্ধ জ্ঞান ও জ্ঞান অর্জনের প্রক্রিয়াকে বলা হয় বিজ্ঞান।

একটা কথা লক্ষ্য করবেন। তা হলো এখানে আমি বৈজ্ঞানিক প্রক্রিয়ার ধাপগুলো কে একত্র করে এই সংজ্ঞা টা তৈরি করেছি যাতে মবে রাখতে সহজ হয়। ধন্যবাদ সবাইকে এবং

    শুভ হোক বিজ্ঞানযাত্রা
                    
+2 টি ভোট
করেছেন (54,270 পয়েন্ট)
ভৌত বিশ্বের যা কিছু পর্যবেক্ষণযোগ্য, পরীক্ষণযোগ্য ও যাচাইযোগ্য, তার সুশৃঙ্খল, নিয়মতান্ত্রিক গবেষণা ও সেই গবেষণালব্ধ জ্ঞানভাণ্ডারের নাম বিজ্ঞান।

ল্যাটিন শব্দ সায়েনটিয়া (scientia) থেকে ইংরেজি সায়েন্স শব্দটি এসেছে, যার অর্থ হচ্ছে জ্ঞান। বাংলা ভাষায় বিজ্ঞান শব্দটির অর্থ বিশেষ জ্ঞান। ধারাবাহিক পর্যবেক্ষণ ও গবেষণার ফলে কোন বিষয়ে প্রাপ্ত ব্যাপক ও বিশেষ জ্ঞানের সাথে জড়িত ব্যক্তি বিজ্ঞানী, বিজ্ঞানবিদ কিংবা বৈজ্ঞানিক নামে পরিচিত হয়ে থাকেন।

বিজ্ঞানীরা বিশেষ বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি অনুসরণ করে জ্ঞান অর্জন করেন এবং প্রকৃতি ও সমাজের নানা মৌলিক বিধি ও সাধারণ সত্য আবিষ্কারের চেষ্টা করেন। বর্তমান বিশ্ব এবং এর প্রগতি নিয়ন্ত্রিত হয় বিজ্ঞানের মাধ্যমে। তাই এর গুরুত্ব অপরিসীম। ব্যাপক অর্থে যেকোনো জ্ঞানের পদ্ধতিগত বিশ্লেষণকে বিজ্ঞান বলা হলেও এখানে বিশেষায়িত ক্ষেত্রে শব্দটি ব্যবহার করা হবে।

বিজ্ঞানের ক্ষেত্র মূলত দুটি: সামাজিক বিজ্ঞান এবং প্রাকৃতিক বিজ্ঞান। জীববিজ্ঞান, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়নসহ এ ধরনের সকল বিজ্ঞান প্রাকৃতিক বিজ্ঞানের অন্তর্ভুক্ত। অন্যদিকে মানুষের আচার-ব্যবহার এবং সমাজ নিয়ে যে বিজ্ঞান তা সমাজ বিজ্ঞানের অন্তর্ভুক্ত। তবে যে ধরনেরই হোক, বিজ্ঞানের আওতায় পড়তে হলে উক্ত জ্ঞানটিকে সুনির্দিষ্ট পর্যবেক্ষণ এবং পরীক্ষণের মাধ্যমে প্রমাণিত হতে হবে। আর একই শর্তের অধীনে যে গবেষকই পরীক্ষণটি করুন না কেন ফলাফল একই হতে হবে। অর্থাৎ ব্যক্তি চেতনা অনুযায়ী বিজ্ঞানভিত্তিক পরীক্ষণের ফলাফল কখনও পরিবর্তিত হতে পারে না।

গণিতকে অনেকেই তৃতীয় একটি শ্রেণি হিসেবে দেখেন। অর্থাৎ তাদের মতে প্রাকৃতিক বিজ্ঞান, সামাজিক বিজ্ঞান আর গণিত এই তিনটি শ্রেণি মিলে বিজ্ঞান। ঐ দৃষ্টিকোণে গণিত হলো আনুষ্ঠানিক বিজ্ঞান আর প্রাকৃতিক ও সামাজিক বিজ্ঞান হলো পরীক্ষণমূলক বিজ্ঞান। প্রাকৃতিক ও সামাজিক বিজ্ঞানের সাথে গণিতের মিল-অমিল উভয়ই রয়েছে। গণিত একদিক থেকে পরীক্ষণমূলক বিজ্ঞানের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ যে, উভয়টিই একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে পদ্ধতিগত অধ্যয়ন করে। আর পার্থক্য হচ্ছে, পরীক্ষণমূলক বিজ্ঞানে পরীক্ষণের মাধ্যমে প্রমাণ করা হলেও গণিতে কোনো কিছু প্রতিপাদন করা হয় আগের একটি সূত্রের (প্রায়োরি) উপর নির্ভর করে। এই আনুষ্ঠানিক বিজ্ঞান, যার মধ্যে পরিসংখ্যান এবং যুক্তিবিদ্যাও পড়ে, অনেক সময়ই পরীক্ষণমূলক বিজ্ঞানের অগ্রগতিতে বিশেষ ভূমিকা রাখে। তাই পরীক্ষণমূলক বিজ্ঞানে উন্নতি করতে হলে আনুষ্ঠানিক বিজ্ঞানের প্রসার আবশ্যক। কিভাবে কোনো কিছু কাজ করে (প্রাকৃতিক বিজ্ঞান) বা কীভাবে মানুষ চিন্তা করে (সামাজিক বিজ্ঞান) তাই আনুষ্ঠানিক বিজ্ঞান ব্যাখ্যা করে।

তথ্যসূত্র: উইকিপিডিয়া
0 টি ভোট
করেছেন (43,970 পয়েন্ট)
বিজ্ঞান একটি পদ্ধতিগত উদ্যোগ যা মহাবিশ্ব সম্পর্কে পরীক্ষাযোগ্য ব্যাখ্যা এবং ভবিষ্যদ্বাণীর আকারে জ্ঞান তৈরি এবং সংগঠিত করে। বিজ্ঞানের প্রথম দিকের শিকড় প্রাচীন ই-তে পাওয়া যায়
0 টি ভোট
করেছেন (220 পয়েন্ট)
বিজ্ঞানের সঠিক এবং নির্ভুল ব্যাখ্যা ও বিজ্ঞানের পদ্ধতি জানতে পড়ুনঃ https://faith-and-theology.com/বিজ্ঞান-কি/

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

+1 টি ভোট
2 টি উত্তর 226 বার দেখা হয়েছে
0 টি ভোট
1 উত্তর 134 বার দেখা হয়েছে
0 টি ভোট
1 উত্তর 252 বার দেখা হয়েছে
19 জানুয়ারি 2023 "বিবিধ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন liamdavis (120 পয়েন্ট)
+5 টি ভোট
1 উত্তর 138 বার দেখা হয়েছে
21 জুন 2021 "বিবিধ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Xamil (170 পয়েন্ট)
+4 টি ভোট
1 উত্তর 160 বার দেখা হয়েছে
16 জুন 2021 "বিবিধ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Kamrul official (4,280 পয়েন্ট)

10,720 টি প্রশ্ন

18,361 টি উত্তর

4,729 টি মন্তব্য

239,969 জন সদস্য

34 জন অনলাইনে রয়েছে
2 জন সদস্য এবং 32 জন গেস্ট অনলাইনে
  1. Ayon Ratan Agni

    390 পয়েন্ট

  2. Vuter Baccha

    150 পয়েন্ট

  3. almoyaj_k

    130 পয়েন্ট

  4. Mehedi_Bknowledge

    110 পয়েন্ট

  5. Monojit Das

    110 পয়েন্ট

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় উন্মুক্ত বিজ্ঞান প্রশ্নোত্তর সাইট সায়েন্স বী QnA তে আপনাকে স্বাগতম। এখানে যে কেউ প্রশ্ন, উত্তর দিতে পারে। উত্তর গ্রহণের ক্ষেত্রে অবশ্যই একাধিক সোর্স যাচাই করে নিবেন। অনেকগুলো, প্রায় ২০০+ এর উপর অনুত্তরিত প্রশ্ন থাকায় নতুন প্রশ্ন না করার এবং অনুত্তরিত প্রশ্ন গুলোর উত্তর দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। প্রতিটি উত্তরের জন্য ৪০ পয়েন্ট, যে সবচেয়ে বেশি উত্তর দিবে সে ২০০ পয়েন্ট বোনাস পাবে।


Science-bee-qna

সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয় ট্যাগসমূহ

মানুষ পানি ঘুম পদার্থ - জীববিজ্ঞান এইচএসসি-উদ্ভিদবিজ্ঞান এইচএসসি-প্রাণীবিজ্ঞান পৃথিবী চোখ রোগ রাসায়নিক শরীর রক্ত আলো মোবাইল ক্ষতি চুল কী #ask চিকিৎসা পদার্থবিজ্ঞান সূর্য প্রযুক্তি প্রাণী স্বাস্থ্য বৈজ্ঞানিক মাথা গণিত মহাকাশ পার্থক্য এইচএসসি-আইসিটি #science বিজ্ঞান #biology খাওয়া শীতকাল গরম কেন #জানতে ডিম চাঁদ বৃষ্টি কারণ কাজ বিদ্যুৎ রাত রং উপকারিতা শক্তি লাল আগুন সাপ মনোবিজ্ঞান গাছ খাবার সাদা আবিষ্কার দুধ উপায় হাত মশা মাছ মস্তিষ্ক শব্দ ঠাণ্ডা ব্যাথা ভয় বাতাস গ্রহ স্বপ্ন রসায়ন তাপমাত্রা উদ্ভিদ কালো কি বিস্তারিত রঙ পা পাখি গ্যাস মন সমস্যা মেয়ে বৈশিষ্ট্য হলুদ বাচ্চা সময় ব্যথা মৃত্যু চার্জ অক্সিজেন ভাইরাস আকাশ গতি দাঁত আম বিড়াল কান্না নাক
...