কেন হঠাৎ ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, ইন্সটা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল ? - ScienceBee প্রশ্নোত্তর

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রশ্নোত্তর দুনিয়ায় আপনাকে স্বাগতম! প্রশ্ন-উত্তর দিয়ে জিতে নিন পুরস্কার, বিস্তারিত এখানে দেখুন।

+1 টি ভোট
79 বার দেখা হয়েছে
"প্রযুক্তি" বিভাগে করেছেন (420 পয়েন্ট)
পূনঃট্যাগযুক্ত করেছেন

2 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন (420 পয়েন্ট)
সম্পাদিত করেছেন

 Facebook Shut Down !! কেন হঠাৎ ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, ইন্সটা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল ? 


 

সম্প্রতি ৪ অক্টোবর, ২০২১ সালে সন্ধ্যা থেকেই বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে Facebook, Messenger, Instagram ও WhatsApp এক বিরাট Outage (বিদ্যুৎ বা পাওয়ার সাপ্লাই বিভ্রাট)-এর সম্মুখীন হয় ও ব্যবহার বাধাগ্রস্ত হয় । ৫ অক্টোবর, বাংলাদেশ সময় রাত ১ টা পর্যন্ত এর কারণ সম্পর্কে কিছুই জানা যায়নি । কর্তৃপক্ষ "আমরা জানি আপনাদের অসুবিধা হচ্ছে..." এবং "...আমরা দ্রত সম্ভব সব ঠিক করবো…" ইত্যাদি দায়সারা মন্তব্য করে ঘটনা এড়িয়ে যাচ্ছে । উক্ত সময়েই ফেসবুকের শেয়ার প্রায় ৫-৫.৭% পর্যন্ত কমেছে ! 

 

তবে ধারনা করা হচ্ছে, এই Outage-এর সাথে ফেসবুকের সবচেয়ে বড় 'Whistleblower' ঘটনার যোগসূত্র রয়েছে । রয়টার্স, গার্ডিয়ানসহ প্রায় সকল আন্তর্জাতিক পত্রিকা একযোগে এ ঘটনাকে টেনে আনছে । এই রবিবার, ৩ অক্টোবর, ২০২১, ফেসবুকের Civic Integrity Team-এর সাবেক Product Manager, Frances Haugen (37), 60 Minutes নামক প্রোগ্রামে ফেসবুকের অনেক গোপন ও 'অনৈতিক' বিষয় নিয়ে বোমা ফাটান ! এর আগে ওয়াল স্ট্রীট জার্নাল ও US আইন সংস্থাকে হাজার হাজার ডকুমেন্ট শেয়ার করে "ঘৃণা, সহিংসতা ও ভুয়া তথ্যের বিরুদ্ধে ফেসবুক"-এর অবস্থানকে মিথ্যাচার দাবি করেন । 

 

Haugen জানান যে, ফেসবুকের বর্তমান ভার্সন সমাজকে বিচ্ছিন্ন করার পাশাপাশি উপজাতি নির্যাতনে (রোহিঙ্গা নিধনে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ফেসবুক ব্যবহারের ঘটনা—cbsnews.com) ভূমিকা রাখছে । ২০২০ সালের US-নির্বাচনকেন্দ্রীক দূর্ঘটনায়ও তাদের পলিসি ছিল শোচনীয় । তিনি আরো জানান, Instagram কিশোর-কিশোরীদের মানসিক ঝুঁকিতে ফেলছে এবং ৩০% কিশোরী তাদের স্বাস্থ্য ও শরীর নিয়ে হতাশা ও বিতৃষ্ণায় ভুগছে এবং ১৩.৫% কিশোরী আত্মহত্যাকেন্দ্রীক হয়ে যাচ্ছে যা তাদের সোশাল মিডিয়া ব্যবহারে আরো প্রলুব্দ করছে ! Haugen মনে করেন, সকল সুযোগ ও উপকরণ থাকা সত্ত্বেও ফেসবুক এ বিষয়ে কঠোর হচ্ছে না । কেননা গুজব, ভুয়া তথ্য, আবেগময় বিষয়, Polarizing কন্টেন্ট, ধর্মীয় উগ্রবাদ ইত্যাদি বিষয়ে মানুষ সংবেদনশীল এবং এসব নিয়ে পড়ে থাকতেই বেশি পছন্দ করে । এখন Safety Algorithm চেঞ্জ করলে ব্যবহারের পরিমাণ কমে যাবে, অ্যাডে ক্লিকের পরিমাণ কমে গেলে ইনকামও কমে যাবে । 

 

উল্লেখ্য, অক্টোবর, ২০২০ সালে ফেসবুক Cambridge Analytica Scandal-এ জড়িয়ে ৫ বিলিয়ন ডলার জরিমানা দেয় । এছাড়াও Privacy ও পক্ষপাতীত্ব নিয়ে প্রায়ই ফেসবুকের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয় । 

 

এখন এই Outage হওয়ার পিছনে ৪টি কারন থাকতে পারে বলে আমি মনে করি :

  • এটা কেবলই একটা দূর্ঘটনা 

  • কোনো ভেতর/বহিঃশত্রু দ্বারা Sabotage-এর শিকার 

  • ফেসবুক তাদের পুরো প্রযুক্তি ব্যবস্থায় কোনো মেজর আপডেট আনতে গিয়ে Outage হয়ে গেছে/করা হয়েছে

  • Whistleblowing-এর পর বড় কোনো অভিযোগ থেকে দৃষ্টি সরাতে বা ভিকটিম সাজার জন্য অথবা আত্মরক্ষার জন্য Outage-কে ব্যবহার করে তাদের গোপন, সেনসিটিভ তথ্য ও নিরাপত্তাত্রুটিকে আড়াল করা/মেরামত করা হবে । 

 

Update : বাংলাদেশ সময় রাত ৪:২৪ 

 

Bloomberg-এর দেয়া তথ্য মতে, ফেসবুক ও সহসেবা কার্যক্রমগুলো প্রায় ৬ ঘন্টা বন্ধ থাকার কারণ DNS error যার উৎস BGP (Border Gateway Protocol) । DNS-হচ্ছে ইন্টারনেটের ফোনবুকের মতো আর BGP হলো পোস্টাল সেবা । ইউজার যখন ডেটা ইনপুট দেয়, BGP তখন ইন্টারনেটের সবচেয়ে সেরা ও সহজলভ্য ভ্রমণ পথ নির্ধারণ করে । এ ঘটনায় ফেসবুকের পাবলিক ও অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ ব্যবস্থাও ব্যহত হয় । Cloudflare Inc.-এর ভাষ্যমতে, Outage-এর কিছুক্ষণ আগে ফেসবুকের BGP route-গুলোতে বড় বড় কিছু পরিবর্তন আনা হয় ।

সত্য যেটাই হোক, প্রকৃত ঘটনা কখনোই আমরা জানতে পারবো না । কারণ টেক জায়ান্টগুলো তাদের সব ত্রুটি পুরোপুরি প্রকাশ করে না । এটা তাদের দূর্বলতাকে উন্মুক্ত করার মতো । 

 

--রিদুয়ান

0 টি ভোট
করেছেন (23,540 পয়েন্ট)

 

বিশ্বব্যাপী প্রায় ৬ ঘণ্টা ফেসবুক হোয়াটসঅ্যাপ, ইনস্টাগ্রাম-এর সেবা বন্ধ ছিল। বাংলা‌দেশ সময় সোমবার ( ৪ অক্টোবর) রাত সোয়া ৯টা থে‌কে মধ্যরাত সাড়ে ৩টা পর্যন্ত এসব সামাজিকমাধ্যমের সার্ভার ডাউন ছিল। ফেসবু‌কের ইতিহা‌সে এটাই কোনো বড় আউটেজ।

ফেসবুক ডাউন হ‌য়ে‌ছিল যে কার‌ণে

 

ফেসবু‌ক ডাউন থাকার ঘটনা এর আগেও ঘ‌টে‌ছে ত‌বে সেটা বি‌শেষ কিছু লো‌কেশন কিংবা কিছু কিছু দে‌শের ক্ষে‌ত্রে। ত‌বে এবারই প্রথমবার এই ধর‌নের ঘটনা ঘট‌ল যেখা‌নে ফেসবু‌কের হেড‌কোয়ার্টারেও সব সেবা বন্ধ ছিল। এমন‌কি ফেসবু‌কের কর্মীরা যারা অনলাইনে ওয়ার্ক‌প্লে‌সে কাজ ক‌রেন, তারাও লগইন হ‌তে পা‌রেন‌নি।

যাই হোক, এখন সবার প্রশ্ন ঘটনাটা আস‌লে কী ঘ‌টে‌ছিল? এর মূল কারণ ছিল ফেসবু‌কের DNS (Domain Name System) সি‌স্টেম এর সমস্যা। সাধারণত এক‌টি কম্পিউটার নেটওয়ার্ক সি‌স্টেম কাজ ক‌রে কতগু‌লো আইপি (ইন্টার‌নেট প্রো‌টোকল) এর ওপর ভি‌ত্তি ক‌রে। অর্থাৎ এক‌টি কম্পিউটার যখন অন্য এক‌টি ক‌ম্পিউটা‌রের সঙ্গে যোগা‌যোগ স্থাপন ক‌রে, তখন একে অপর‌কে চি‌নে থা‌কে আইপি অ্যাড্রেসের মাধ্যমে।

একইভা‌বে আমরা যখন ইন্টার‌নে‌টে কোনো ও‌য়েবসাইট কিংবা সার্ভা‌রে প্রবেশ ক‌রি, তখন মূলত উক্ত সার্ভা‌রে প্রবেশ ক‌রি তার নির্ধা‌রিত আইপি অ্যা‌ড্রে‌সের মাধ্যমে। প্রত্যেকটা সার্ভা‌রের এক‌টি নি‌র্দিষ্ট ইন্টার‌নেট আইপি থা‌কে যেটা হয় ইউনিক (‌মোবাইল নাম্বা‌রের ম‌তো, অন্য কারও সা‌থে মিল‌বে না)। যেমন ফেসবু‌কের অনেকগু‌লো আইপির ম‌ধ্যে এক‌টি হ‌লো- 63.69.176.13, কিন্তু একজন সাধারণ মানু‌ষের প‌ক্ষে এত আইপি এড্রেস কখ‌নোই ম‌নে রাখা সম্ভব নয়, তাই এর সহজ সমাধা‌নে ব্যবহৃত হয় DNS (Domain Name System)। যার কাজ হ‌চ্ছে আইপি এড্রেস‌কে নামে কনভার্ট করা।

উদাহরণ হি‌সে‌বে আমরা যখন facebook.com লি‌খি, তখন এই DNS প্রযু‌ক্তি প্রথ‌মে খুঁজে বের ক‌রে Facebook.com এর সার্ভা‌রের আইপি এড্রেস কি, তারপর facebook.com আর উক্ত সার্ভার আইপি এড্রেসের সঙ্গে সং‌যোগ স্থাপন ক‌রে আমা‌দেরকে সার্ভার পর্যন্ত পৌঁছে দেয়, ঠিক একইভা‌বে আমরা যখনই কোনো ও‌য়েবসাই‌টে প্রবেশ ক‌রি প্রত্যেক ক্ষে‌ত্রেই এই একই পদ্ধ‌তি ব্যবহৃত হয়, আমা‌দের‌কে কষ্ট ক‌রে আইপি মনে রাখ‌তে হয় না, শুধু ও‌য়েবসাই‌টের ঠিকানাটা ম‌নে রাখ‌লেই হয়।

এখন প্রশ্ন থাক‌তে পা‌রে ফেসবু‌কের ডিএনএস সমস্যা হ‌লে হোয়াটসঅ্যাপ আর ইনস্টাগ্রামেও কেন এর প্রভাব পড়‌বে? এর উত্তর হ‌লো- ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপে সবার ডেটাই থা‌কে এক‌টি সার্ভার সি‌স্টে‌মে এবং ব্যাকইন্ডে ডাটা‌বেস কা‌নে‌ক্টি‌ভি‌টির ক্ষে‌ত্রে সবাই ফেসবু‌কের ডিএনএস সি‌স্টেম (facebook.com) ব্যবহার ক‌রে, তাই ফেসবু‌কের ডিএনএস সমস্যা হওয়া‌তে বা‌কি‌দেরও হ‌য়ে‌ছে।

য‌দিও ফেসবুক ই‌ঞ্জি‌নিয়া‌রিং টিম থে‌কে এক‌টি ব্যাখ্যা দেওয়া হ‌য়ে‌ছে যে "‌নেটওয়ার্ক রাউ‌টিং সি‌স্টে‌ম কন‌ফিগা‌রেশ‌নে তারা কিছু প‌রিবর্তন পে‌য়ে‌ছে যে কার‌নে মুল সার্ভারের সঙ্গে যো‌গা‌যোগ বি‌চ্ছিন্ন হয়।
 

 

সব‌শে‌ষে বলা যায় নেটওয়ার্ক সি‌স্টে‌মে ত্রু‌টির কার‌ণে ঘটনা‌টি ঘট‌তে পা‌রে সেটা হ‌তে পা‌রে DNS ইস্যু অথবা Router ইস্যু। ত‌বে যখন এই সমস্যা‌টি হয় তখন আমরা ফেসবু‌কের কিছু কিছু আই‌পি‌কে ping ক‌রে পে‌লেও facebook.com কে ping ক‌রে পা‌চ্ছিলাম না।

 

এদিকে, সামাজিকমাধ্যম ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ ও ইনস্টাগ্রামে ব্যবহারে ব্যাহত হওয়ার জন্য দুঃখপ্রকাশ করেছেন মার্ক জাকারবার্গ।

তিনি বলেন, আজকের এই বিভ্রাটের জন্য আমি দুঃখিত। আমি জানি যে যাদের প্রতি আপনি যত্নশীল, তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করতে এসব পরিষেবার ওপর আপনারা কতটা নির্ভরশীল।

সোমবার (৪ অক্টোবর) রাত ৯টার কিছু সময় পর থেকে এসব যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে বার্তা আদান-প্রদান বন্ধ হয়ে যায়। এতে বিপাকে পড়েন বিশ্বজুড়ে লাখো ব্যবহাকারী। রাত সাড়ে চারটার দিকে এই টুইট বার্তায় সার্ভার সচল হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপ আবার অনলাইনে ফিরে এসেছে।

মঙ্গলবার সকালে এক টুইটপোস্টে হোয়াটসঅ্যাপ জানিয়েছে, আজ যারা আমারদের পরিষেবা ব্যবহার করতে পারেননি, তাদের সবার কাছে ক্ষমা চাচ্ছি। ধীরে ও সতর্কতার সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপ কাজ করতে শুরু করেছে। ধৈর্য ধরার জন্য আপনাদের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ। এ নিয়ে সবাইকে হালনাগাদ তথ্য জানিয়ে দেওয়া হবে।

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, বিভ্রাটের খবরে ফেসবুকের শেয়ারের দর সোমবার এক ধাক্কায় সাড়ে ৫ শতাংশ পড়ে গেছে। প্রায় এক বছরের মধ্যে শেয়ারবাজারে সবচেয়ে বাজে দিনটি পার করছে সামাজিকমাধ্যমটি।

আর ইনডিপেনডেন্ট বলছে, ফেসবুকের ইতিহাসে এতো বড় মাত্রায় বিভ্রাটের ঘটনা একেবারেই বিরল। তবে এসব ক্ষেত্রে ফেসবুক সাধারণত খুব একটা তথ্য প্রকাশ করে না, মুখে কুলুপ এঁটে থাকে।

 

২০১৯ সালেও বড় পরিসরে যান্ত্রিক জটিলতায় পড়েছিল তারা। তখন রক্ষণাবেক্ষণের কাজ করতে গিয়ে ওই সমস্যা দেখা হয়েছিল। ফেসবুকের সাবেক কর্মী ফ্রান্সিস হাউগেনের মার্কিন সিনেটে সাক্ষ্য দেওয়ার নির্ধারিত তারিখের ঠিক আগের দিন এই বিভ্রাটে পড়ল এ কোম্পানির সেবাগুলো।

হাউগেনের হাত দিয়ে ফাঁস হওয়া ফেসবুকের অভ্যন্তরীণ নথির কারণে ব্যাপক সমালোচনার পাশাপাশি মার্কিন সিনেটের তদন্তের মুখে পড়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

ফেসবুকের মাসিক সক্রিয় ব্যবহারকারী এখন ২৯০ কোটি। অর্থাৎ বিশ্বব্যাপী এই পরিমাণ অ্যাকাউন্ট থেকে মাসে একবার হলেও সামাজিকমাধ্যমটিতে লগইন করা হয়। এই ব্যবহারকারীদের চার কোটি ৮০ লাখের বাস বাংলাদেশে। অপরদিকে বিশ্বব্যাপী ১২০ কোটি মানুষ হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করছেন।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

+5 টি ভোট
1 উত্তর 68 বার দেখা হয়েছে
+4 টি ভোট
2 টি উত্তর 75 বার দেখা হয়েছে
+9 টি ভোট
1 উত্তর 135 বার দেখা হয়েছে
+9 টি ভোট
1 উত্তর 221 বার দেখা হয়েছে
0 টি ভোট
1 উত্তর 33 বার দেখা হয়েছে
04 নভেম্বর "প্রযুক্তি" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Hojayfa Ahmed (104,160 পয়েন্ট)

7,633 টি প্রশ্ন

9,357 টি উত্তর

4,365 টি মন্তব্য

63,096 জন সদস্য

54 জন অনলাইনে রয়েছে
3 জন সদস্য এবং 51 জন গেস্ট অনলাইনে
  1. ismot2007

    780 পয়েন্ট

  2. Faridul Basunia

    130 পয়েন্ট

  3. MaryannCole

    100 পয়েন্ট

  4. MarylinFun88

    100 পয়েন্ট

  5. CarmeloWalte

    100 পয়েন্ট

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় উন্মুক্ত বিজ্ঞান প্রশ্নোত্তর সাইট সায়েন্স বী QnA তে আপনাকে স্বাগতম। এখানে যে কেউ প্রশ্ন, উত্তর দিতে পারে। উত্তর গ্রহণের ক্ষেত্রে অবশ্যই একাধিক সোর্স যাচাই করে নিবেন। অনেকগুলো, প্রায় ২০০+ এর উপর অনুত্তরিত প্রশ্ন থাকায় নতুন প্রশ্ন না করার এবং অনুত্তরিত প্রশ্ন গুলোর উত্তর দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। প্রতিটি উত্তরের জন্য ৪০ পয়েন্ট, যে সবচেয়ে বেশি উত্তর দিবে সে ২০০ পয়েন্ট বোনাস পাবে।


Science-bee-qna

সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয় ট্যাগসমূহ

মানুষ পানি এইচএসসি-উদ্ভিদবিজ্ঞান ঘুম এইচএসসি-প্রাণীবিজ্ঞান রোগ চোখ জীববিজ্ঞান - পৃথিবী শরীর এইচএসসি-আইসিটি মোবাইল ক্ষতি কী রক্ত চুল চিকিৎসা আলো মাথা কারণ উপকারিতা গরম প্রাণী বৈজ্ঞানিক বৃষ্টি পার্থক্য শীতকাল ডিম খাওয়া কাজ সাপ রং বিদ্যুৎ প্রযুক্তি #biology কেন লাল খাবার রাত সাদা আগুন ভয় সূর্য গাছ হাত মহাকাশ মশা শক্তি সমস্যা কি উপায় ব্যাথা মাছ পদার্থবিজ্ঞান বৈশিষ্ট্য পা #জানতে মনোবিজ্ঞান দুধ ঠাণ্ডা স্বাস্থ্য গণিত #ask গ্রহ কালো রসায়ন আম উদ্ভিদ দাঁত বাচ্চা শব্দ মেয়ে ঔষধ নাক বিজ্ঞান হলুদ স্বপ্ন রঙ চাঁদ বাতাস ভাইরাস বিড়াল পাতা বিস্তারিত চার্জ ফোবিয়া হরমোন তাপমাত্রা পাখি চা মানসিক নখ পাকা মৃত্যু আবিষ্কার কুকুর ত্বক বৃদ্ধি জন্ম
...